পটুয়াখালীতে করোনায় নতুন সংক্রমিত ৩০ জন

ছবি রয়টার্সপটুয়াখালী জেলায় নতুন করে ৩০ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে শিশু, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী এবং বিদ্যুৎ বিভাগ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য রয়েছেন। এ নিয়ে পটুয়াখালী জেলায় কোভিড–১৯–এ আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৭২। 

ঢাকা থেকে রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পাঠানো নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন আসার পর গতকাল মঙ্গলবার রাতে পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলায় কোভিডের উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। ওই ব্যক্তির বাড়ি গলাচিপার চর বিশ্বাসে। তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৫ বছর। জ্বর-শ্বাসকষ্ট থাকায় ১ জুলাই ওই ব্যক্তি নমুনা দেন। পরদিন ২ জুলাই তিনি বাড়িতেই অসুস্থ অবস্থায় মারা যান। এ নিয়ে পটুয়াখালী জেলায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে মারা গেলেন ২৩ জন।

পটুয়াখালী জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, জেলায় নতুন করে যে ৩০ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে, তাঁদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১৪, গলাচিপায় ৫, বাউফল উপজেলায় ৪, মির্জাগঞ্জে ৩, দশমিনায় ২ ও কলাপাড়া উপজেলায় রয়েছেন ২ জন।

এদিকে জেলায় এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে সংক্রমিত মারা যাওয়া ২৩ জনের মধ্যে বাউফলে ৭, দুমকিতে ৩, কলাপাড়ায় ২, সদর উপজেলায় ৪, গলাচিপায় ৪ এবং দশমিনা, মির্জাগঞ্জ ও রাঙ্গাবালী উপজেলায় ১ জন করে রয়েছেন।

পটুয়াখালীর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা সুমন বালা জানান, জেলায় গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট ৪ হাজার ৮২৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৪ হাজার ১৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন এসেছে। শনাক্ত হয়েছেন ৫৭২ জন। কোভিড-১৯–এ আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ১৩৪ জন সুস্থ হওয়ার পর আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২৫ জন এবং বাড়িতে আইসোলেশনে (বিচ্ছিন্ন) আছেন ৩৯০ জন।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: