রিজেন্ট হাসপাতাল যে ১২টি সম্ভাব্য ‘পদ্ধতি’তে করোনা পরীক্ষা করিয়েছে

২০১৪ সালে মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া বাতিল লাইসেন্স নিয়েও করোনা চিকিৎসার অনুমোদন পাওয়া উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতাল এতদিন কোনো ধরনের পরীক্ষা ছাড়াই করোনা পরীক্ষার রেজাল্ট দিয়ে আসছে। পরীক্ষা করছে বা করছে না, লাইসেন্স আছে বা নেই-আমাদের পলিসি মেকারদের মতো আমরাও সেসব নিয়ে ভাবিনি (ভাবলেও পরে জানানো হবে)। আমরা ভেবে দেখার চেষ্টা করেছি, পরীক্ষা ছাড়াই করোনা নির্ধারণের সম্ভাব্য কিছু পদ্ধতি। যেহেতু তারা রেজাল্ট দিয়েছে সেহেতু তাদের নিশ্চই কোন না কোন ইনোভেশন আছে। সেই ইনোভেশনগুলোই ভাবার চেষ্টা করেছে আমাদের করোনা বিশেষজ্ঞরা। চোখ বুলিয়ে দেখুন, কখনো যদি নিজেও ভুয়া করোনা টেস্টের সিদ্ধান্ত নেন তখন কাজে লাগতে পারে (তবে র‍্যাবের হাতে ধরা খাওয়ার মানসিক প্রস্তুতি রাখতে ভুলবেন না)।

১# 10-20-30 পদ্ধতি, নমুনাগুলা নিয়ে বাংলার শিশুদের চিরায়ত ‘অপু দশ বিশ ত্রিশ’ এই সিস্টেমে পজিটিভ-নেগেটিভ নির্ধারণ করেছে।

২# মোবাইল নম্বরের শেষ ডিজিট দেখে রেজাল্ট দেয়া হয়েছে। জোড় হলে পজেটিভ আর বেজোড় হলে নেগেটিভ।

৩# গণিতের শিক্ষকদের হায়ার করে প্রোবাবলিটির অংক করার মাধ্যমে দৈবক্রমে নমুনা চয়ন করে পজিটিভ হওয়ার সম্ভাব্যতা নির্ণয় করা হয়েছে।

৪# নামের ইংরেজি বানানের প্রথম অক্ষর দিয়ে। বেশি রোগীকে চিকিৎসা দেয়ার জন্য এক্ষেত্রে তারা কনসোনেন্টকে পজেটিভ ও ভাওয়েলকে নেগেটিভ হিসেবে ধরেছে।

৫# নমুনা নেয়ার সময় রোগীর মুখের অঙ্গভঙ্গি দেখে নেগেটিভ-পজেটিভ নির্নয়ের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেয়া যায় না। হাস্যোজ্জ্বল মুখে থাকলে পজেটিভ। চিন্তিত মুখের জন্যও পজেটিভ।

৬# সচেতনতাকে হয়তো তারা গুরুত্ব দিয়েছে। নমুনা দিতে আসার সময় বাংলাদেশি নকল এন৯৫ পরে আসলে নেগেটিভ আর আসল এন৯৫ এর জন্য পজেটিভ।

৭# বন্দুক দিয়ে বেলুন ফাটানো পদ্ধতিতেও করতে পারে। নমুনা বরাবর বন্দুক তাক করে গুলি ছুড়েছে। যেটা ফেটেছে ওটা নেগেটিভ যেটা ফাটেনি ওটা পরেরবার ফাটানোর জন্য রাখা হয়েছে।

৮# নমুনা নেয়ার সময় রোগীর মতামতও হয়তো নিয়েছে। রোগীকে জিজ্ঞেস করা হয়েছে, আপনার কী মনে হয় পজিটিভ না নেগেটিভ? রোগী যা বলেন সেইটাই রেজাল্ট। আফটার অল, নিজের শরীরে কী চলছে তা নিজের চেয়ে ভালো তো কেউ জানতে পারে না!

৯# কিছু টিকটিকিও নিয়োগ দিয়ে থাকতে পারে। নমুনা হাতে নিয়ে বসে থাকা অবস্থায় টিকটিকি ঠিক ঠিক বললেই রোগী পজেটিভ।

১০# রাশিফল বিশ্লেষণ করেও হতে পারে। রোগী যেদিন নমুনা দিয়েছে সেদিন রোগীর রাশিফলে যাত্রা শুভ থাকলে নেগেটিভ আর না থাকলে পজিটিভ।

১১# গুলিস্তানের ভাগ্য গণনার টিয়াপাখিকেও এই কাজে নিয়োগ দিয়ে থাকতে পারে তারা। টিয়াপাখিই আসলে নমুনা পরীক্ষা করেছে!

১২# হাসপাতালের বেড খালি থাকলে পজেটিভ, বেড বাড়াতে পারলে পজেটিভ। বাকিরা ওয়েটিংয়ে…

 

আরও পড়ুন-

বাইচান্সের লাইসেন্স নাই, তাই আমাদেরও নাই: রিজেন্ট হাসপাতাল

‘ক্যাচ মি ইফ ইউ ক্যান’ পদক পাচ্ছেন রিজেন্ট চেয়ারম্যান সাহেদ করিম

রিজেন্ট হাসপাতালের মতো খাতা না দেখেই রেজাল্ট দেয়ার অনুরোধ জানালো শিক্ষার্থীরা





আরও পড়ুন eআরকিতে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: