বাণিজ্য সফলতায় নারীরা এগিয়ে গেছেন: টিপু মুনশি

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি (ছবি: ফোকাস বাংলা)

 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, বাণিজ্য সফলতায় বাংলাদেশের নারীরা অনেক দূর এগিয়ে গেছেন। দেশের জনশক্তির প্রায় অর্ধেক নারী। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বর্তমান সরকার এই বিপুল নারী জনশক্তিকে উৎপাদনশীল কাজে লাগাতে সবধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ফলে অনেক নারী বাণিজ্য করে সফল হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এসএমই’র মাধ্যমে উদ্যোক্তা নারীদের ঋণ ও প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। ফলে কুটির শিল্পে নারীদের অগ্রযাত্রা চোখে পড়ার মতো।’

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) আইটিসি নিউইয়র্ক অফিসের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বাংলাদেশ সময় গভীর রাতে ইউনাইটেড ন্যাশন এবং ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশন (ডব্লিউটিও) এর উদ্যোগে আয়োজিত ‘সি ট্রেড আউট  লুক’ শীর্ষক ভার্চুয়াল হাই লেভেল পলিটিক্যাল ফোরামের আলোচনায়  অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আলোচনায় অংশ নিয়ে টিপু মুনশি বলেন, ‘ঢাকাসহ জেলাগুলোতে ওমেন চেম্বার অব কমার্স গড়ে উঠেছে। বাংলাদেশ তৈরি পোশাক রফতানিতে পৃথিবীর মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। এ সেক্টরে প্রায় ৪৫ লাখ শ্রমিক কাজ করছেন, এর প্রায় ৮০ ভাগই নারী। চলমান কোভিড-১৯  পরিস্থিতি মোকাবিলায় এই নারীকর্মীদের সুরক্ষা প্রদানের জন্য বেতন খাতে সরকার ৫ হাজার কোটি টাকা নামমাত্র সুদে সরবরাহ করেছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকার ইতোমধ্যে জরুরি, স্বল্প মেয়াদি এবং দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। পর্যায়ক্রমে তা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।’

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় নারী উদ্যোক্তাদের অগ্রাধিকারসহ সহযোগিতা দেওয়া হচ্ছে।  এ কারণে বাংলাদেশে নারী উদ্যোক্তা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। বাণিজ্য ক্ষেত্রে নারীদের অংশ গ্রহণ রেড়েছে।’ তিনি জানান, জাতিসংঘ বিগত ২০১৬ সালে নারীর ক্ষমতায়নে বিশেষ সফলতার জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘প্ল্যানেট ৫০-৫০ চ্যাম্পিয়ন’ পদকে ভূষিত করে। কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষের ব্যবধান কমানোর সফলতায় উইমেন ইন পার্লামেন্ট (ডব্লিউআইপি) ২০১৪ সালে ‘ডব্লিউআইপি গ্লোবাল ফোরাম অ্যাওয়ার্ড’ এবং নারী শিক্ষায় সফলতার জন্য তিনি ‘ট্রি অব পিস’ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করেন।

ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক মিসেস ডরোথি টেম্বোর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টারি আন্ডার সেক্রেটারি অব স্টেট এবং প্রধানমন্ত্রীর নারী শিক্ষাবিষয়ক বিশেষ দূত বারোনেস সাগ সিবিই, ত্রিনিদাদ অ্যান্ড টোবাগোর সিনেটর এবং শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী মিস পাউলা গোপি-স্কোন, নেগারিয়ার নারীবিষয়ক এবং সোশ্যাল ডেভেলপমেন্ট মন্ত্রী মিস ডামে পাউলিন টালেন, এবং কানাডার ক্ষুদ্র বাণিজ্য, এক্সপোর্ট প্রমোশন অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড-বিষয়ক মন্ত্রী মিস মেরি এনজি বক্তব্য রাখেন।

 





আরও পড়ূন বাংলা ট্রিবিউনে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: