সরাইলে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ, অর্ধশতাধিক আহত

 আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার কালিকচ্ছ ইউনিয়নের কাটানিসার গ্রামে মঙ্গলবার (৭ জুলাই) রাত এবং বুধবার (৮ জুলাই) সকালে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে দুই দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত অর্ধশতাধিক সমর্থক আহত হয়েছেন। খবর পেয়ে সরাইল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, উপজেলার নোঁয়াগাও ইউনিয়নের কাটানিশার গ্রামের বজলু গোষ্ঠী ও ওলি গোষ্ঠীর লোকজনের মধ্যে গ্রামের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলে আসছিলো। এ বিরোধের জেরে মঙ্গলবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে দুই পক্ষের লোকদের মধ্যে বাকবিতণ্ডার ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাত ৯ টার দিকে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষে পুলিশসহ উভয়পক্ষের অন্তত অর্ধশত লোক আহত হয়।

আহতদের সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল এবং আশপাশের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

 পরে বুধবার সকালে বজলু মিয়ার গোষ্ঠীর একজন রাতের সংঘর্ষে মারা গেছেন, এমন গুজব ছড়িয়ে পড়লে উভয়পক্ষের লোকজন ফের সংঘর্ষে জড়ায়। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজল চৌধুরী জানান, গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতের পর বুধবার সকালেও দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। এতে উভয়পক্ষের অন্তত অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজমুল আহমেদ জানান, মঙ্গলবার রাতে ও বুধবার সকালে দুই দফায় সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ফের সংঘর্ষের আশঙ্কায় এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।দাঙ্গাবাজদের গ্রেফতারে এলাকায় পুলিশি অভিযান চলছে। তবে এখন পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি।





আরও পড়ূন বাংলা ট্রিবিউনে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: