হাত কামড়ে সুয়ারেজকে মনে করালেন প্যাত্রিচ

হাত কামড়ে সাজা পেলেন প্যাত্রিচহাত কামড়ানো-কাণ্ডে একজন অনুসারী পেয়ে গেছেন বার্সেলোনার উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুইস সুয়ারেজ! তার নাম প্যাত্রিসিও গ্যাবারন জিল-প্যাত্রিচ নামেই পরিচিত। ইনি একজন কাতালান এবং আছে বার্সেলোনা-সংযোগ। ঘটনা যদিও স্প্যানিশ লিগে ঘটেনি, ঘটেছে ইতালির সিরি আ-তে।

মঙ্গলবার লেচ্চের মাঠে খেলা ছিল লাৎসিওর। এ ম্যাচ না জিতলে  শিরোপার দৌড়ে জুভেন্টাসের চেয়ে পিছিয়ে পড়তে হবে, অবনমন অঞ্চলে থাকা লেচ্চের সঙ্গে শুরুটা ভালোও করেছিল লাৎসিও। পাঁচ মিনিটেই পেয়ে গিয়েছিল প্রথম গোল। কিন্তু ৪৭ মিনিটের মধ্যে দুটি গোল করে এগিয়ে যায় লেচ্চে। তাদের রক্ষণ আর ভাঙতে পারেনি রোমের দলটি। চেষ্টা করেছে পাঁচ মিনিট যোগ করা সময়েও, অন্তত হার এড়ানোর চেষ্টা। সেটিও শেষ পর্যন্ত হয়নি তাদের ২৭ বছর বয়সী রাইটব্যাক প্যাত্রিচের অবিমৃশ্যকারিতায়। সাত পয়েন্ট এগিয়ে টানা নবম স্কুদেত্তো জয়ের পথে এগিয়ে গেছে জুভেন্টাস। ৯৩ মিনিটে লাৎসিও কর্নার কিক রুখতে বক্সের মধ্যে রক্ষণ সাজাতে গিয়ে হাত ছড়িয়ে দিয়েছিলেন লেচ্চে ডিফেন্ডার জিউলিও দোনাতি। প্যাত্রিচ তার বাঁহাতের কনুইয়ের ওপর কামড় বসিয়ে দেন। দোনাতির চিৎকার ও আবেদনে সাড়া দিয়ে ‘ভার’-এর সাহায্য নেন রেফারি। সেখানেই পরিষ্কার হয়েছে স্প্যানিশ খেলোয়াড়টির অপকীর্তি। সঙ্গে সঙ্গেই লাল কার্ড। কিন্তু এই অপরাধের শাস্তি তো এক ম্যাচের স্বয়ংক্রিয় বহিষ্কারাদেশ হতে পারে না, এটির আরও বড় অপরাধ। ‍লুইস সুয়ারেজের ক্ষেত্রেই তা দেখা গেছে।

ইতালিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (এফআইজিসি) ডিসিপ্লিনারি কমিশন বুধবারই শাস্তি চূড়ান্ত করেছে। চার ম্যাচ বহিষ্কার, সঙ্গে ১০ হাজার ইউরো জরিমানা। তবে লাৎসিওর সমর্থকেরা প্যাত্রিচের ওপর খেপেছে প্রচণ্ড। তার চুক্তি বাতিলের দাবিতে সরগরম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম।

প্যাত্রিচ ফুটবলার হিসেবে গড়ে উঠেছেন বার্সেলোনার একাডেমি লা মাসিয়ায়। ২০০৮ সালে ১৫ বছর বয়সে লা মাসিয়ায় যোগ দিয়ে ২০১২ থেকে খেলেছেন বার্সেলোনা বি দলে। ২০১৩ সালে সিনিয়র বার্সেলোনা দলে একটি ম্যাচ খেলেছেন চ্যাম্পিয়নস লিগে, গ্রুপ পর্বে আয়াক্সের কাছে হেরে যাওয়া সেই ম্যাচে মাত্র কয়েক মিনিটের জন্য কার্লেস পুয়োলের বদলি হিসেবে নেমেছিলেন। ২০১৫ সালে চার বছরের চুক্তিতে যোগ দেন সিরি আ-র লাৎসিওতে।

প্যাত্রিচ যখন বার্সেলোনায়, তখন অবশ্য সুয়ারেজ এসে গেছেন। সুয়ারেজের বদগুন মধ্যে ছায়া ফেলেছে সেখান থেকেই? ব্যাপারটি তা নয়। মনস্তত্ত্ববিদরা বলেন এটি একধরনের মনোবৈকল্য। লেচ্চেকে হারাতে না পারার হতাশাই প্যাত্রিচকে মুহূর্তের জন্য উন্মত্ত করে তুলেছিল। সুয়ারেজ যেমন মুহূর্তের উন্মাদনায় ২০১৩ সালে লিভারপুলের হয়ে খেলার সময় হাত কামড়ে দিয়েছিলেন চেলসি ডিফেন্ডার ইভানিভিচের, আর ২০১৪ বিশ্বকাপে ইতালি ডিফেন্ডার জর্জো কিয়েলিনির। লিভারপুলের ঘটনায় সুয়ারেজ নিষিদ্ধ হয়েছিলেন ১০ ম্যাচ, বিশ্বকাপের ঘটনায় নয়টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ।    





আরও পড়ূন বাংলা ট্রিবিউনে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: