পোশাককর্মীর ধর্ষণের সংবাদ প্রকাশ করায় দুই সাংবাদিককে মারধর

পোশাককর্মীকে গণধর্ষণের সংবাদ প্রকাশ করার কারণে কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার দুই সাংবাদিককে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে আটটায় উপজেলার বেলাশহর এলাকায় ডেনিম প্রসেসিং প্লান্ট লিমিটেড কারখানার লোকজন মারধর করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন দুই সাংবাদিক। আহত দুই সাংবাদিক এখন চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি।

আহত সাংবাদিকেরা হলেন, যুগান্তরের চান্দিনা উপজেলা প্রতিনিধি আবদুল বাতেন ও যায় য়ায় দিনের চান্দিনা উপজেলা প্রতিনিধি জাকির হোসেন।
অভিযোগ উঠেছে, পোশাক কারখানার লোকজন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক থেকে দুই সাংবাদিককে পোশাক কারখানার ভেতর টেনে নিয়ে ক্যামেরা ও মুঠোফোন ছিনিয়ে নেন এবং মারধর করেন।

চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন সাংবাদিক আবদুল বাতেন বলেন, ‘ আমি ও সাংবাদিক জাকির হোসেন আজ সকালে বেলাশহর এলাকার ডেনিম প্রসেসিং প্লান্ট লিমিটেডের পাশের সড়ক দিয়ে যাচ্ছিলাম। হঠাৎ ওই পোশাক কারখানার স্বত্বাধিকারী মো. জাহাঙ্গীর আলমের চাচাতো ভাই ও পোশাক কারখানার কোয়ালিটি সুপারভাইজার মো. লিটন, তাঁর ভাই আনোয়ার হোসেনসহ অন্তত ১০ থেকে ১২ জনের একটি দল আমাদের ওপর হামলা চালান। একপর্যায়ে আমাদের জোর করে তুলে নিয়ে কারখানার ভেতরে আটকে রাখেন, মারধর করেন এবং ক্যামেরা ও মুঠোফোন ছিনিয়ে নেন।’

তিনি জানান, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করে। পুলিশ ক্লোজড সার্কিট (সিসি) টিভির ফুটেজ দেখে ঘটনার সত্যতা খুঁজে পায়।

অপর সাংবাদিক জাকির হোসেন বলেন, ‘সত্য ঘটনা লেখায় আমাদের ওপর হামলা করা হয়। আমরা এর বিচার চাই।’

অভিযোগ প্রসঙ্গে পোশাক কারখানার পরিচালক আলমগীর হোসেন দাবি করেন, ‘আমাদের কোনো কর্মী ধর্ষণের শিকার হননি। এরপরও ওই দুই সাংবাদিক আমাদের সুনাম ক্ষুণ্ন করার জন্য পত্রিকায় মিথ্যা খবর ছাপিয়েছেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এমনটা (মারধর) হতে পারে।’

চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল ফয়সল বলেন, কারখানার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে সাংবাদিকদের মারধরের সত্যতা পাওয়া গেছে। ৬ জুলাই রাত নয়টায় ওই কারখানার এক নারী শ্রমিক গণধর্ষনের শিকার হয়েছেন, সেটিও সত্য। সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা হবে।

উল্লেখ্য, ৬ জুলাই রাত নয়টায় ওই নারী শ্রমিক বাগুর এলাকায় গণধর্ষণের শিকার হন। এরপর রাতেই চান্দিনা থানা–পুলিশ ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় দেবীদ্বার থানায় ওই নারী শ্রমিক মামলা করেছেন।

এর আগে গত শনিবার বেলা ২টা ১৫ মিনিটে কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার কাজিয়াতল গ্রামে উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও সমকালের উপজেলা প্রতিনিধি শরিফুল আলম চৌধুরীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। তাঁর ঘরে ঢুকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করেন দারোরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান। এই ঘটনায় দুজন কারাগারে আছেন। ওই সাংবাদিক এখন ঢাকায় পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: