বাংলাদেশে বায়ার-এর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক

জাহিদুল ইসলামবহুজাতিক প্রতিষ্ঠান বায়ার ক্রপসায়েন্স লিমিটেড, বাংলাদেশ-এর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিযুক্ত হলেন জাহিদুল ইসলাম। এবারই প্রথম একজন বাংলাদেশি এই দায়িত্ব পেলেন। এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।
বায়ার ক্রপসায়েন্স লিমিটেড, বাংলাদেশ হলো জার্মানি ভিত্তিক বিশ্বখ্যাত কৃষি উপকরণ ও স্বাস্থ্যসেবা ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান বায়ার এজি এবং বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশনের একটি যৌথ উদ্যোগ।

বাংলাদেশে বায়ার-এর পরিচালনা পর্ষদ গত ১ জুলাই থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে জাহিদুল ইসলামকে নিয়োগ দিয়েছে। নতুন দায়িত্ব গ্রহণের সময় তিনি বলেন, ‘বিশ্বমানের উন্নত ও আধুনিক কৃষি উপকরণ, পীড়ন সহনশীল উচ্চ ফলনশীল হাইব্রিড বীজ এবং ডিজিটাল ফার্মিংয়ের মতো প্রযুক্তি প্রসারের মাধ্যমে কৃষির উন্নয়নে বায়ার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। কৃষক, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও উন্নয়ন সহযোগী সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আমাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাবো, যা বাংলাদেশে খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।’

জাহিদুল ইসলাম কৃষি উপকরণ শিল্পে ১৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে কাজ করছেন। ২০০৪ সালে বায়ার-এ যোগ দেন তিনি। দীর্ঘ ১৫ বছরের পথচলায় বাংলাদেশ এবং বায়ার-এর দক্ষিণ এশিয়ার হেডকোয়ার্টার মুম্বাইয়ে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। সেলস, স্ট্র্যাটেজিক মার্কেটিং, ব্র্যান্ডিং, অপারেশনাল মার্কেটিং অ্যান্ড কমার্শিয়াল এক্সিলেন্সসহ বিভিন্ন স্ট্র্যাটেজিক প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্টে নেতৃত্ব দিয়েছেন। সবশেষ কমার্শিয়াল অপারেশন লিড এবং নির্বাহী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন।

২০১৫ সালের মার্চ থেকে গত ৩০ জুন পর্যন্ত বাংলাদেশে বায়ার-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন শ্রীনিভাসা কুমার কারাভাদী। তিনি বাংলাদেশে দায়িত্ব পালনকালে কৃষকদের মাঝে অনেক নতুন সমাধান ও প্রযুক্তিকে জনপ্রিয় করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখেন। বায়ার-এর ক্রপসায়েন্স ডিভিশনের ভারত, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা ক্লাস্টারের হেড অব মার্কেট ডেভেলপমেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিতে ভারতে ফিরে যাচ্ছেন তিনি।

বাংলাদেশে বায়ার-এর পণ্যগুলোর মধ্যে রয়েছে উচ্চ ফলনশীল হাইব্রিড ধান বীজ, হাইব্রিড ভুট্টা বীজ, হাইব্রিড সবজি বীজ এবং আধুনিক বালাইনাশক। সম্প্রতি বায়ার বাংলাদেশে একলাখ প্রান্তিক কৃষককে বিনামূল্যে হাইব্রিড বীজ বিতরণ করেছে, যা তাদের জীবনমান উন্নয়নে এবং কোভিড-১৯ মহামারির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সহায়তা করবে। এটি বায়ার-এর বৈশ্বিক উদ্যোগ ‘বেটার ফার্মস, বেটার লাইফস’-এর একটি অংশ, যার আওতায় এশিয়া, আফ্রিকা ও লাতিন আমেরিকায় ২০ লাখ প্রান্তিক কৃষককে বীজ ও ফসল সংরক্ষণ পণ্যসহ ফসল ব্যবস্থাপনায় পরামর্শ ও প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।





আরও পড়ূন বাংলা ট্রিবিউনে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More