ভালোবেসে সবই হারিয়েছেন ধ`র্মান্তরিত নারী

নওগাঁয় প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিয়ের প্র`লোভন দিয়ে আ`দিবাসী এক কলেজ ছাত্রীকে ধ`র্ষ`ণের অ`ভিযোগ উঠেছে আল-আমিন মা`ল্টিপারপাস কোঅপারেটিভ সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলীম আল রাজী বাবুর বি`রুদ্ধে। প`ত্নী`তলায় অ`বস্থিত ওই মা`ল্টিপারপাসে গচ্ছিত রাখা ২ লাখ টাকাও ফে`রত না দিয়ে কা`গজপত্র লো`পাট করা হয়েছে। প্র`তারণার শিকার ওই কলেজ ছাত্রী সব হারিয়ে পরিবার পরিজন থেকে বি`চ্ছিন্ন হয়ে বর্তমানে অ`সহায় জীবন যাপন করছেন।

সু`বিচার পেতে নওগাঁ শিশু নি`র্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল নং-২ আ`দালতে গত ১৮ আগস্ট মা`মলা করেছেন তিনি।মা`মলা সূত্রে জানা গেছে, জেলার ধা`মইরহাট উপজেলার পশ্চিম চকভবানী গ্রামের আদিবাসী ওই কলেজ ছাত্রী স্থানীয় একটি কলেজে ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। প`ত্নীতলায় আল-আমিন মাল্টিপারপাস কোঅফারেটিভ সোসাইটির এক নারী ক`র্মচারীর সঙ্গে একই ম্যাচে ভাড়া থাকতেন। তার সঙ্গে যাতায়াতের সুবাদে ওই মা`ল্টিপারপাস কোঅপারটিভ সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলীম আল রাজী বাবুর সঙ্গে পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং এফিডেফিট করে মুসলিম ধ`র্মে ধ`র্মান্তরিত হন তিনি।

২০১৯ সালের ১৬ জানুয়ারি থেকে ওই কলেজ ছাত্রীকে বিয়ে করার প্রলো`ভন দিয়ে জে`লার মহাদেবপুর ও প`ত্নীতলা উপ`জেলার বিভিন্ন বা`সায় ভাড়া থাকতেন তারা।সবশেষে তাকে প`ত্নীতলা উপজেলা সদরে নিজ বাসার একাংশে রাখেন আলীম আল রাজি। প্রতি মাসে তার হাতখরচ বাবদ কিছু টাকা এবং নিয়মিত বাজার সদাই করে দিতেন। কিন্তু বিয়ের কথা বললে তালবাহানা করতেন। চলতি বছরের মার্চ মাসে ক`রোনার প্রা`দুর্ভাব দেখা দিলে কৌশলে তাকে বাড়ি থেকে চলে যেতে বলেন। কলেজ ছাত্রী তার বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর থেকে আলীম আল রাজি যোগাযোগ এবং সবধরনের খরচ বন্ধ করে দেন।

এমনকি তিনি মাল্টিপারপাসে যে দুই লাখ টাকা রেখেছিলেন তার কাগজপত্রও লোপাট করে ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানান আলীম আল রাজি।ধ`র্মান্তরিত হওয়ায় একদিকে যেমন বাবা-মার কাছে ফিরে যেতে পারছে না। অন্যদিকে আলীম আল রাজি তাকে গ্রহণও করছে না। স্ত্রীর স্বী`কৃতি চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তিনি।এই মা`মলার প্র`ত্যক্ষ সাক্ষী উপজেলার পাহাড়পুর কাটা বাঁ`শবাড়ি গ্রামের হারুনুর রশিদ, গগণপুর গ্রামের নেছারুল হক সুপার ও আনন্দপুর গ্রামের মাহফুজুর রহমান এক সময় আলীম আল রাজির পা`র্টনার হিসেবে আল আমিন মাল্টিপারপাস কোঅপারেটিভ সোসাইটির সঙ্গে ছিলেন।

একজন অসহায় আদিবাসী নারীর সঙ্গে এই অ`ন্যায়ের প্র`তিবাদ করায় তাদেরকে প্র`তিষ্ঠান থেকে সরিয়ে দেয়া হয়। মা`মলা দায়ের করায় ব`র্তমানে আলীম আল রাজি তাদের দো`ষারোপ করছেন এবং নানাভাবে হু`মকি প্রদান করছেন।অ`ভিযুক্ত আল-আমিন মা`ল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলীম আল রাজী বাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার বি`রুদ্ধে আনিত অ`ভিযোগ অ`স্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমার সম্মানহানী করতে কিছু কু`চক্রী মহল উঠেপড়ে লেগেছে। অবশেষে একটি মেয়েকে তার পিছনে লেলিয়ে দেয়া হয়েছে।



আরও পড়ুন বাংলা ইনফোতে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: