বর্ষসেরা ক্রিয়েটিভ লোগোর পুরস্কার পাচ্ছে ক্রিয়েটিভ ওরাল এন্ড ডেন্টাল সার্জারী

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ওরাল ও ডেন্টাল সেবা দেয়া একটি প্রতিষ্ঠান লোগো ডিজাইনের মতো শৈল্পিক একটা ক্ষেত্রে পুরস্কার জিতে নিলো। বছরের সবচেয়ে ক্রিয়েটিভ লোগোটি ডিজাইনের কৃতিত্ব দেখিয়েছে ক্রিয়েটিভ ওরাল এন্ড ডেন্টাল সার্জারি নামের এই প্রতিষ্ঠান। কোন ধরনের আয়োজন, প্রতিযোগিতা এসব না হওয়ায় একদম বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় এই সম্মান অর্জন করলেন তারা।

কিসের ভিত্তিতে এই পুরস্কার দিলেন তাদের? জানতে চাইলে জনৈক বিচারক লোগোটির দিকে একদৃষ্টে তাকিয়ে থাকতে থাকতে বলেন, ‘লোগোটা দেখেন মিয়া। দেখেন, ডাক্তার-রোগীর মধ্যে একটা “ওরাল” সম্পর্ক এখানে পরিষ্কার। আর রোগ শুইয়া আছে দাঁতের উপর। মানে ডেন্টাল। আর লোগোতে ডাক্তার আর রোগীর পজিশন দেখে তাদের মধ্যে একটা ঘনিষ্ঠ সম্পর্কও টের পাওয়া যায়। রোগীর আস্থা জিতে নেয়ার জন্য এমন লোগোই প্রয়োজন।’

এ পর্যায়ে আমাদেরকে বাইরে অপেক্ষা করতে বলে ‘যাই, এমন ক্রিয়েটিভ হাসপাতালে নিজের দাঁতও একটু দেখিয়ে আসি’ বলে তিনি ভেতরে ঢুকে যান।

অন্য এক লোগো বিশারদের সাথে এই বিষয়ে কথা বললে তিনি বলেন, ‘লোগোতে তাদের আন্তরিকতা ও কাজের মান ফুঁটে উঠেছে। লোগোটা দেখেই মনে হয়, এখানে দাঁত ফালাইতে কোন ব্যথা টের পাওয়া যাইবো না। ডাক্তার একদম কোলে নিয়ে, মানে সেরকম কেয়ার নিয়ে দাঁতের চিকিৎসা করায়।’

ক্রিয়েটিভ ডেন্টাল সার্জারীর এক কর্মকর্তার কাছেও আমরা লোগোর মাজেজা জানতে চাই। তিনি বেশ কিছুক্ষণ লোগোর দিকে এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থেকে এরপর বলেন, ‘লোগোটি দেখলেই বুঝায় যায় আমাদের সেবার মান অনেকটা মিশনারি হাসপাতালের মতো!’

অবশ্য ক্রিয়েটিভ ডেন্টাল সার্জারীকে এমন পুরস্কারে ভূষিত করায় বেশ ক্ষেপেছেন কয়েকজন যুবক। দাঁতবিহিন মাড়ি দেখিয়ে প্রতারণার অভিযোগ এনে একজন বলেন, ‘লোগো দেখে আরাম পেয়ে ব্যথাবিহীন দাঁত ফেলবো বলে এই হাসপাতালে গেছিলাম। ফেলতে ফেলতে সবগুলো দাঁত ফেলে দিছি। কিন্তু লগোর মতো সেবা একবারও পাইনি।’





আরও পড়ুন eআরকিতে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: