ইতালির পর করোনার নতুন কেন্দ্র হতে পারে যুক্তরাষ্ট্র

0

ইউরোপের পর প্রাণঘাতী নভেল করোনা ভাইরাসের বিস্তারের নতুন কেন্দ্র যুক্তরাষ্ট্র হয়ে উঠতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) এ হুঁশিয়ারি দিয়েছে সংস্থাটি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস বলেন, আমরা দেখছি, যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা খুব দ্রুত গতিতে বাড়ছে। তাই দেশটি বৈশ্বিক এ মহামারির পরবর্তী কেন্দ্র হওয়ার আশঙ্কা প্রবল।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬ হাজার ছাড়িয়েছে। এরই মধ্যে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৫৯৩ ছাড়িয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস বলেছেন, আমরা দেখছি, যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা খুব দ্রুত গতিতে বাড়ছে। তাই দেশটি বৈশ্বিক এ মহামারির পরবর্তী কেন্দ্র হওয়ার আশঙ্কা প্রবল।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬ হাজার ছাড়িয়েছে। এরই মধ্যে দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ৫৯৩ ছাড়িয়েছে।

এদিকে স্পেনের পরিস্থিতি আরও বাজে আকার নিয়েছে। মঙ্গলবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯ হাজার ছাড়িয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সেখানে মৃতের সংখ্যা এরই মধ্যে প্রায় ২৭০০ হয়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জানিয়েছেন যে, স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য যথেষ্ট স্বাস্থ্য সুরক্ষা সরঞ্জাম তাদের হাতে নেই।

মঙ্গলবার সকালে এক টুইটে ডোনাল্ড ট্রাম্প লেখেন, মাস্ক ও ভেন্টিলেটরের বৈশ্বিক বাজার অভাবনীয় পর্যায়ে রয়েছে। অঙ্গরাজ্যগুলোকে চিকিৎসা সরঞ্জাম পেতে আমরা সাহায্য করছি, কিন্তু এটি সহজ নয়।

যুক্তরাষ্ট্রের সব অঙ্গরাজ্যের গভর্নররা যখন তাঁদের নাগরিকদের ঘরে থাকার আহ্বান জানাচ্ছেন, তখন ডোনাল্ড ট্রাম্প ঠিকই পাগলাটে বক্তব্য দিচ্ছেন। গতকাল সোমবার তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশ শাটডাউন থাকার জন্য সৃষ্টি হয়নি।’ তিনি একই সঙ্গে দু সপ্তাহের মধ্যে অর্থনীতিকে পুরোদমে চালু করা হবে বলে মন্তব্য করেন। বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরুর পর আজ মঙ্গলবার অনেক সমঝে বক্তব্য রেখেছেন।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বাজে পরিস্থিতি নিউইয়র্ক অঙ্গরাজ্যে। সেখানে প্রতি দিনে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হচ্ছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অঙ্গরাজ্যটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫ হাজার ছাড়িয়েছে। বাড়ছে মৃতের সংখ্যাও।

Loading...

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More