জুনে সারাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩৬৮

যাত্রী কল্যাণ সমিতি

চলতি বছরের জুন মাসে সারাদেশে মোট ৩৫৮টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩৬৮ জন নিহত এবং ৫১৮ জন আহত হয়েছেন। এসময় ২০টি রেল দুর্ঘটনায় ১৫ জন নিহত ও ৪ জন আহত  হয়েছেন। এছাড়া নৌ-পথে ১৭টি দুর্ঘটনায় ৪৫ জন নিহত ও ৬০ জন আহত  হয়েছেন। নৌ দুর্ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন ১০ জন।

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির সড়ক দুর্ঘটনা মনিটরিং সেলের এক পর্যবেক্ষণ প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। দেশের জাতীয় ও আঞ্চলিক দৈনিক এবং অনলাইন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে এই প্রতিবেদন তৈরি করেছে সংগঠনটি। রবিবার (১২ জুন ) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রতিবেদনে বলা হয়, জুন মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় আক্রান্তদের মধ্যে ১৬২ জন  চালক, ১২৫ জন পরিবহন শ্রমিক, ১১৩ জন পথচারী, ৬২ জন নারী, ৫৭ জন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ২৮ জন শিশু, ২৩ জন শিক্ষার্থী, ১১ জন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, ৭ জন শিক্ষক, এক জন চিকিৎসক, এক জন মুক্তিযোদ্ধা এবং এক জন প্রকৌশলীর পরিচয় সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে রয়েছেন ১১৬ জন চালক, ৯৮ জন পথচারী, ৪৯ জন নারী, ৪৬ জন পরিবহন শ্রমিক, ২১ জন শিশু, ১৯ জন ছাত্র-ছাত্রী, আট জন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, সাত জন শিক্ষক, একজন চিকিৎসক, এক জন মুক্তিযোদ্ধা, এক জন প্রকৌশলী, পাঁচ জন পুলিশ ও দুই জন বিজিবি সদস্য।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মে মাসের তুলনায়  জুন মাসে সড়ক দুর্ঘটনা ৫৬ দশমিক ১৪ শতাংশ, নিহত ৫৭ দশমিক ৩৪ শতাংশ ও আহতের হার ৪৩ দশমিক ৮২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

যাত্রী কল্যাণ সমিতি মনে করে, সড়ক নিরাপত্তায় দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থাগুলোর স্বেচ্ছাচারিতা, অনিয়ম, দুর্নীতি ক্রমাগতভাবে বৃদ্ধি ও জবাবদিহীতার অভাবে সড়ক দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি বাড়ছে। সরকারের আন্তরিকতা ও বিগত নির্বাচনে রাজনৈতিক অঙ্গিকার থাকলেও বর্তমান সরকারের দুটি বাজেটে তার কোনও প্রতিফলন ঘটেনি। উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ট্রাফিক ব্যবস্থার আধুনিকায়ন, লাইসেন্স ও গাড়ির ফিটনেস পদ্ধতি ঢেলে সাজানো ব্যতিরেকে সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়।

 

 





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: