অনলাইনে শাবির নতুন সেমিস্টার শুরু ১৯ জুলাই, বিভিন্ন পদক্ষেপ প্রশাসনের

আগামী ১৯ জুলাই থেকে নতুন সেমিস্টারের ক্লাস অনলাইনে শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে  শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পাশাপাশি অনলাইনে ক্লাস পরিচালনা করতে বিভিন্ন পদক্ষেপও নেওয়া হয়েছে। উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৫৯ তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবি)
একাডেমিক কাউন্সিলের সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১৯ জুলাই থেকে  অনলাইনে প্রস্তুতিমূলক ক্লাস শুরু হবে। এছাড়া ঈদের পর সার্বিকভাবে অনলাইনে ক্লাস শুরু হবে। 

এছাড়া ক্যাম্পাস খুললে রিভিউ ক্লাস নেওয়া, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে অনলাইনে ভাইভা ও প্রজেক্ট/থিসিস উপস্থাপনা নেওয়া, অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের জন্য বিভাগীয় তহবিল গঠন, ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিতকরণে বিভিন্ন নেটওয়ার্ক অপারেটর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করা, শিক্ষকদের শিক্ষাছুটি প্রদান ও পূর্ববর্তী প্রাপ্তদের ছুটি বর্ধিতকরণসহ বেশ কয়েকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে একই সভায়। 

এ বিষয়ে একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য ও বাংলা বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. আশ্রাফুল করীম বলেন, ‘আগামী ১৯ জুলাই থেকে অনলাইনে নতুন সেমিস্টার শুরুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে ১৯ জুলাই প্রস্তুতিমূলক ক্লাস শুরু হলেও ঈদের পর সম্পূর্ণভাবে ক্লাস শুরু হবে।’
এদিকে অনলাইনে ক্লাস শেষ হলেও ক্যাম্পাস খুললে রিভিউ ক্লাসের বিষয়ে ড. আশ্রাফুল করীম বলেন, ‘ক্যাম্পাস খুললে প্রয়োজন অনুযায়ী সেমিস্টারভিত্তিক ৩ সপ্তাহ বা এক মাস রিভিউ ক্লাস নেওয়ার পর ফাইনাল পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিষয়টি নিয়ে প্রত্যেক বিভাগের প্রধানকে বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা করতে বলা হয়েছে।’
‘চলতি সেমিস্টার না আগের সেমিস্টারের পরীক্ষা আগে নেওয়া হবে?’ এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে তেমন কোনও আলোচনা হয়নি। বিষয়টি প্রশ্ন আকারে উঠলে ক্যাম্পাস খুললে একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’ 

‘অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের জন্য প্রত্যেক বিভাগে আর্থিক তহবিল গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে’ উল্লেখ করে বিষয়ে ড. আশ্রাফুল করীম বলেন, ‘বর্তমান সংকটকালীন কথা চিন্তা করে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের জন্য প্রত্যেক বিভাগে আর্থিক তহবিল গঠন করা হয়েছে। বিভাগীয় প্রধানের নিকট আবেদনের প্রেক্ষিতে অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের এ তহবিল থেকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

ইন্টারনেট সুবিধা নিশ্চিতকরণে নেটওয়ার্ক অপারেটর কর্তৃপক্ষের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কথা বলেছেন উল্লেখ করে ড. আশ্রাফুল করীম জানান, শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রি বা স্বল্পমূল্যে ইন্টারনেট সুবিধা  প্রদানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে।  ইতোমধ্যে নেটওয়ার্ক অপারেটর কর্তৃপক্ষের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কথা বলেছেন বলেও জানান তিনি।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: