দুই সিদ্ধান্তে কোনও দুঃখ নেই স্টোকসের

স্টোকস: উইকেট না পাওয়ার হতাশা। ছবি: আইসিসি-ক্রিকেট২০ বছরের মধ্যে মাত্র দ্বিতীয়বার ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে টেস্ট হারলো ইংল্যান্ড। তবে যে দুটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত এই হারের প্রভাবক বলে মনে করা হচ্ছে তা নিয়ে বেন স্টোকসের কোনও দুঃখ নেই।

ইংল্যান্ডের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক বলেছেন, টস জিতে মেঘাচ্ছন্ন্ আকাশের নিচে ব্যাটিং নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঠিকই ছিল। এমনকি ঠিক ছিল ৪৮৫টি টেস্ট উইকেটশিকারি পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডকে বাদ দেওয়াও। পিতৃত্বকালীন ছুটি কাটিয়ে ফেরা জো রুটের হাতে আগামী বৃহস্পতিবারই অধিনায়কত্ব সঁপে দিতে প্রস্তুত স্টোকস বলেছেন, ‘আমি ব্যাট করার সিদ্ধান্তকে সঠিক বলছি। স্কোরবোর্ডে অনেক রান তুলতে পারার যথেষ্টই সামর্থ্য ছিল আমাদের। ম্যাচটির নিয়ন্ত্রণ যেভাবে আমাদের হাতে ‍তুলে নেওয়া উচিত ছিল সেটি আমরা পারিনি।’ ‘আমরা পেছন ফিরে তাকালে দেখবো দুটি ইনিংসেই যেমন অবস্থানে ছিলাম, তাতে আমাদের নিষ্ঠুরভাবে চালিয়ে খেলা উচিত ছিল। আরও ৬০ থেকে ৮০ রান বেশি হলে ম্যাচটি অন্যরকম হতে পারতো’-ইংল্যান্ডের ডেইলি মেইল আবারো এভাবে উদ্ধৃত করেছে স্টোকসকে।

আট বছরের মধ্যে হোম সিরিজে প্রথম বাদ পড়ে ব্রড ম্যাচের মাঝপথেই আবেগময় এক সাক্ষাৎকার দিয়েছেন, বাদ পড়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। স্টোকস তা নিয়ে বলেছেন, ‘আমার যদি এটা নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করতে হতো, আমি মনে করি না তাতে অন্যদের কাছে সঠিক বার্তাটি যেতো। সে (ব্রড) যে সাক্ষাৎকারটি দিয়েছে তা দারুণ। ১০০ টেস্ট খেলা একজন যে আকাঙ্ক্ষা ও আবেগ প্রকাশ করেছে এবং যে উত্তর দিয়েছে, তা যদি সে না করতো তাহলেই আমি বরং উদ্বিগ্ন হতাম। আমরা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম এটা চিন্তা করেই যে পেসটা আমাদের বেশি কাজে লাগবে। স্টুয়ার্ট দুর্দান্ত একজন বোলার, সে নিজেও কারণটা জানে।’

মনে কোনও দুঃখ রেখে পেছন ফিরে তাকাতে রাজি নন ইংল্যান্ডের সেরা পেস বোলিং অলরাউন্ডার, ‘আমরা হেরেছি, কিন্তু আমি কোনও দুঃখ নিয়ে পেছন ফিরে তাকাতে চাই না। এটাই আমরা দেখাতে পেরেছি যে আমাদের দলে নেওয়ার মতো এত এত ভালো বোলার আছে যাতে স্টুয়ার্টের মতো কাউকেও বাদ দিতে পারি।’

পেছন ফিরে তাকাতে চান না, তার অর্থ স্টোকস এখন সামনেই তাকাচ্ছেন, যেখানে আরও দুটি টেস্ট বাকি আছে সিরিজের। ‘আমরা জানি আরও দুটি ম্যাচ বাকি আছে এবং সে দুটি জিতেই সিরিজ ২-১ করার লক্ষ্য আমাদের। আমরা জানি আমাদের কী করতে হবে, তা হলো পরের ম্যাচ দুটি জেতা। ম্যাচটি জিততে পারিনি বলে পেছন ফিরে তাকিয়ে হতাশ হবো, তবে এটাও বলতে পারবো আমিই ছিলাম ইংল্যান্ড ক্যাপ্টেন।’

ওদিকে সাত টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অধিনায়ক হিসেবে চার টেস্টে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জিতলেন জেসন হোল্ডার। তার কাছে সাউদাম্পটনের এই জয়টা ‘বিশাল’, ‘ইংল্যান্ডের মাটিতে ইংল্যান্ডকে হারানো মোটেই সহজ নয়। নিজেদের মাঠে তারা ভয়ঙ্কর দল, তবে আমরা যেভাবে খেলেছি তাতে আমি গর্বিত।’





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: