নির্মাণের কয়েক ঘণ্টা পরই ভেঙে ফেলা হলো আবরারের স্মরণে নির্মিত স্তম্ভ

ভাঙার আগে (বামে) ও ভাঙার পরে (ডানে)নির্মাণের ১২ ঘণ্টা না যেতে ভেঙে ফেলা হলো বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ স্মরণে নির্মিত ‘আট স্তম্ভ’। আজ বুধবার (৭ অক্টোবর) সকালে আবরার ফাহাদ হত্যার এক বছর উপলক্ষে বুয়েট সংলগ্ন পলাশী চত্বরে নির্মাণ করা হয় ওই স্তম্ভটি। যেটি আবরার ফাহাদ স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে নির্মাণ করা হয়। পলাশী চত্বরটি পড়েছে ঢাকা-২৬ নং ওয়ার্ডে। তবে বিষয়টি জানেন না ওয়ার্ড কাউন্সিলর।
স্তম্ভটি ভেঙে ফেলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন আবরার ফাহাদ স্মৃতি সংসদের আহ্বায়ক ও ডাকসুর সাবেক সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন। তিনি বলেন, ‘কোনও দেশপ্রেমিক আবরার ফাহাদের স্মৃতি ভাঙতে পারে না। আমরা এর নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি।  স্তম্ভটি যারা ভেঙে দিয়েছে, তাদের পুনরায় নির্মাণের দাবি জানাই। তারা না করলে আবারও ছাত্রজনতাকে সঙ্গে নিয়ে আমরা নির্মাণ করবো।’

জানতে চাইলে ঢাকা-২৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাসিবুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কিসের স্তম্ভ তৈরি করা হয়েছে, তাই তো জানি না। স্তম্ভ করতে হলে সিটি করপোরেশনের অনুমতি নিতে হয়। কিন্তু এটা কখন করলো, না করলো এটা আমার জানা নেই।’

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের স্মৃতি সমুন্নত রাখতে ভারতীয়  আগ্রাসন বিরোধী ‘আট স্তম্ভ’ নির্মাণ করেছে আবরার ফাহাদ স্মৃতি সংসদ। এটির আহ্বায়ক হলেন আখতার হোসেন। তিনি ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের নেতৃত্বাধীন ছাত্র সংগঠন ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ সম্পাদক। স্তম্ভটি উদ্বোধন কর্মসূচীতে অংশ না নিতে আবরারের বাবা-মাকে হুমকি দেওয়া হয়। তাই আবরারের পরিবারের কেউ স্মৃতি স্তম্ভটি উদ্বোধনকালে আসতে সাহস পায়নি বলে অভিযোগ আখতারের।   

উল্লেখ্য, গত বছরের এই দিনে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের একদল সন্ত্রাসীরা নিমর্মভাবে পিটিয়ে আবরার ফাহাদকে হত্যা করে। আজ আবরার হত্যার এক বছর পূর্ণ হয়েছে।

 





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: