অকাল বৃষ্টিতে ফেনীতে রোপা আমন ও রবিশস্যের ক্ষতি

অকাল বৃষ্টিতে ফেনীতে রোপা আমন ও রবিশস্য ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে জমিতে জমে যাওয়া পানি দ্রুত সরাতে না পারলে আরও অনেক ক্ষতি হবে বলে আশঙ্কা করছে কৃষি বিভাগ।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী মানিক বাংলা ট্রিবিউনকে এমন আশঙ্কার কথা জানিয়ে বলেন, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের ফলে ২১ অক্টোবর থেকে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত অতিমাত্রায় বৃষ্টি হয়েছে। এতে ক্ষতি হওয়া ফসলের জমির তালিকা সোমবার (২৬ অক্টোবর) প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত করেছি এবং কৃষকদের পানি নিষ্কাশনের পরামর্শ দিচ্ছি। পানি নেমে গেলে চূড়ান্ত ক্ষতির পরিমাণ নির্ণয় করা যাবে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্র জানায়, এবার জেলার ছয় উপজেলায় ৬৬ হাজার ৫২৫ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষ করা হয়েছে। চলতি মৌসুমে ধানের ভালো ফলনের আশা করলেও গত কয়েকদিনের মুষলধারে বৃষ্টিতে কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এছাড়া শীতকালীন সবজির ১০২ হেক্টর, খিরা ১৫ হেক্টর, ধনিয়া ২ হেক্টর ও মাসকলাই ১ হেক্টর জমির ক্ষতি হয়েছে। শীতকালীন সবজি এক হাজার ৮৪৫ হেক্টর, খিরা ৬১ হেক্টর, ধনিয়া ৮ হেক্টর ও মাসকলাই ৭ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে।

এর মধ্যে সদর উপজেলায় রোপা আমন ১৫ হাজার ৯৪০ হেক্টর পরিমাণ আবাদের মধ্যে ২০ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ৬০০ হেক্টরের মধ্যে ১০ হেক্টর, ছাগলনাইয়া উপজেলায় রোপা আমন ৯ হাজার ২৫০ হেক্টরের মধ্যে ৪৫ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ১৬০ হেক্টরের.মধ্যে ৬০ হেক্টর, খিরা ৫ হেক্টর, ধনিয়া ২ হেক্টর ও মাসকলাইয়ের ১ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ফুলগাজীতে ৬ হাজার ২০৫ হেক্টরের মধ্যে ৩০ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ৬০ হেক্টরের মধ্যে ২৫ হেক্টর, খিরা ২৫ হেক্টরের মধ্যে ১০ হেক্টরের ক্ষতি হয়েছে। পরশুরামে রোপা আমন পাঁচ হাজার ৮৫০ হেক্টরের মধ্যে ৩ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ১৫০ হেক্টরের মধ্যে ২ হেক্টরের ক্ষতি হয়েছে। দাগনভূঞায় রোপা আমন ৮ হাজার ৫১০ হেক্টরের মধ্যে ৫ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ১৭৫ হেক্টরের মধ্যে ২ হেক্টর ও সোনাগাজীতে রোপা আমন ২০ হাজার ৯৭০ হেক্টরের মধ্যে ১৯ হেক্টর, শীতকালীন সবজি ৭০০ হেক্টরের মধ্যে ৩ হেক্টরের ক্ষতি হয়েছে।





আরও পড়ূন বাংলা ট্রিবিউনে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: