জুমকে টেক্কা দিতে এল আম্বানির জিওমিট

জিওমিট বাজারে এনেছে ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও। ছবি: রয়টার্সকরোনারোধে লকডাউনের মধ্যে এখন বেশ জনপ্রিয় অ্যাপ হলো জুম। করোনার সময় বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠান ‘হোম অফিস বা ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ চালু করেছে। বাসা থেকেই করতে হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ সব কাজ। মিটিংও সারতে হচ্ছে অনলাইনে। সবই হচ্ছে জুমে। একই সঙ্গে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস, গবেষণা, বিশ্লেষণের মতো বৈঠকগুলোও এখন সচল রয়েছে জুমের মাধ্যমে। এবার মার্কিন এই অ্যাপকে টেক্কা দিতে জিওমিট বাজারে আনল ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির রিলায়েন্স জিও।

বেশ কয়েক মাস ধরে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জিওমিট চালু করল রিলায়েন্স জিও। অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যাবে। এ অ্যাপের ফ্রি ভার্সনে জুমের মতো ৪০ মিনিটের সীমা নেই। সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে ২৪ ঘণ্টাই ব্যবহার করা যাবে এই অ্যাপ। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এইচডি কোয়ালিটির অডিও ও ভিডিও কলে একই সঙ্গে ১০০ জন পর্যন্ত যুক্ত থাকতে পারবেন। সেই সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ারিং বা মিটিং শিডিউল করার মতো ফিচারও রয়েছে। মাল্টিডিভাইসে সাপোর্ট করবে জিওমিট। কল করার সময় নির্বিঘ্নে একটি ডিভাইস থেকে অন্য ডিভাইসে পরিবর্তন করা যাবে। পাঁচটি ডিভাইস পর্যন্ত সাপোর্ট করবে।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চালু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বেশ সাড়া পেয়েছে জিও মিট। ইতিমধ্যে অ্যাপটি ১০ লাখ অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী ডাউনলোড করেছে।

এ অ্যাপে অর্থ সাশ্রয়ের পাশাপাশি ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত নিরাপত্তার দিকটিতে যথেষ্ট গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে রিলায়েন্স জিও। ‘সেফ ড্রাইভিং মোড’ ছাড়ও ডাবল ট্যাপ করে এই অ্যাপ স্ক্রিনে বড় করা যাবে। পাশাপাশি কোনো একটি মোবাইল স্ক্রিনে জুমের মতো একসঙ্গে চারজনের বদলে সর্বোচ্চ নয়জন পর্যন্ত ব্যবহারকারীকেও দেখা যাবে। অর্থাৎ বলা যায়, জুমের বেশ শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবেই আত্মপ্রকাশ করেছে জিওমিট।

গত জুনে সর্বাধিক জনপ্রিয় ভিডিও কনফারেন্স সার্ভিস জুমের ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিন কোটি। গত মার্চের তুলনায় এই সংখ্যা বেড়েছে ৪০ লাখ।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: