প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলতে চান ইমরান খান

প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলতে চান ইমরান খান

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বুধবার (২২ জুলাই) দুপুরে ফোনে তিনি কথা বলতে পারেন বলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে।সূত্র জানায়, আগামীকাল দুপুরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে প্রায় ১০ মাস পরে ফোনালাপ হতে যাচ্ছে। এর আগে গত অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের আগে ফোন করেন ইমরান খান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, ইসলামাবাদের আগ্রহের বিষয়টি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জানানোর পরে এই টেলিফোন আলাপের সময় নির্ধারিত হয়। তবে পাক প্রধানমন্ত্রী কোন বিষয়ে কথা বলবেন তা জানা যায়নি।পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র আরও জানায়, ঢাকায় অবস্থিত পাকিস্তানের হাইকমিশন থেকে টেলিফোন আলাপের অনুরোধ নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আসা হয়।

এরপরই দুপক্ষের মধ্যে আলাপ করে দুই দেশের সরকারপ্রধানের কথা বলার বিষয়টি নির্ধারিত হয়েছে।জানা যায়, গত সপ্তাহে ঢাকায় পাকিস্তানের নতুন রাষ্ট্রদূত ইমরান আহমেদ সিদ্দিকী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে দেখা করেন। এ বিষয়ে রাষ্ট্রদূত নিজেও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অন্যান্য কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করেন।প্রায় দুই বছরের বেশি সময় ঢাকার পাকিস্তান দূতাবাসে কোনও রাষ্ট্রদূত ছিল না।

ইমরান আহমেদ সিদ্দিকী গত ফেব্রুয়ারিতে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের কাছে পরিচয়পত্র পেশ করেন।আরও পড়ুনঃভূমি আপিল বোর্ডের মামলা ভার্চুয়াল শুনানির মাধ্যমে নিষ্পত্তি করার সক্ষমতা যাচাইয়ের নির্দেশ দিয়েছেন ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী। বর্তমান করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে ভূমি সেবা প্রদান করার জন্য ও ভবিষ্যৎ সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যানকে এ নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) ভূমি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সরকারের কর্মসম্পাদন ব্যবস্থাপনা পদ্ধতির আওতায় ভূমি মন্ত্রণালয় সঙ্গে এর আওতাধীন দফতরের ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে তিনি এ নির্দেশনা দেন।ভূমিমন্ত্রী বলেন, ভূমি মন্ত্রণালয়ের ইউনাইটেড নেশনস পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড-২০২০ অর্জনের জন্য জাতীয় সংসদে জাতির সামনে ভূমি মন্ত্রণালয়ের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা আমাদের জন্য এক বড় পাওয়া। আমাদের কাছে জাতির এখন অনেক আশা।

আমরা যেন স্বচ্ছতা ও দক্ষতার সাথে আরও ভালোভাবে কাজ করে আমাদের এ অর্জন ধরে রাখতে পারি সে চেষ্টা করে যেতে হবে।মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দফতর/সংস্থার প্রধানদের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুযায়ী লক্ষ্য পূরণের সর্বোচ্চ চেষ্টা করার অনুরোধ জানিয়ে ভূমিমন্ত্রী বলেন,

এ বছরের ভালো কর্মকাণ্ডের একটি সুন্দর প্রতিচ্ছবি যেন আগামী বছর আমরা দেখতে পাই।ভূমি সচিব মো. মাক্ছুদুর রহমান পাটওয়ারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দফতর/সংস্থার প্রধান সহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।ভূমি সচিব এ সময় দক্ষতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুযায়ী কার্যক্রমসমূহ বাস্তবায়নের দৃঢ় অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।



আরও পড়ুন বাংলা ইনফোতে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: