গ্রাহকসেবা বৃদ্ধিতে সুনির্দিষ্ট কৌশলপত্র প্রণয়নের আহ্বান বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, উন্নত বিশ্বের সঙ্গে সমন্বয় করে বিদ্যুৎ খাতের মানবসম্পদ উন্নয়নের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। মুজিববর্ষে দক্ষ জনগোষ্ঠী গড়ার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হলেও তা আরও বাড়ানো প্রয়োজন। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিজেদের পেশাগত দক্ষতা প্রতিনিয়ত বাড়িয়ে গ্রাহক সন্তুষ্টিতে কাজ করতে হবে। তিনি সারা বছর কোন সংস্থা কীভাবে গ্রাহকসেবা বৃদ্ধি করবে তার সুনির্দিষ্ট কৌশলপত্র প্রণয়ন করার আহ্বান জানান ।
মঙ্গলবার (২১ জুলাই) অনলাইনে বিদ্যুৎ খাতে বিদ্যমান মানবসম্পদ মূল্যায়ন ও সক্ষমতা বৃদ্ধি সংক্রান্ত বিষয়ে আন্তর্জাতিক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান কেপিএমজি প্রদত্ত প্রতিবেদনের উপর আলোচনাকালে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী ।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, কর্মকালীন ( অন সার্ভিস ) প্রশিক্ষণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ । কোন প্রতিষ্ঠানে কী ধরনের প্রশিক্ষণ লাগে বা কাজের ধরণ অনুসারে কোন যোগ্যতা সম্পন্ন লোক লাগবে বা টেকনিক্যাল-নন-টেকনিক্যাল জনবলের অনুপাত কী হবে তা সেই প্রতিষ্ঠানকেই নির্ধারণ করতে হবে । ২০৪১ সালের উন্নত বাংলাদেশ চিন্তা করে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা এখনই নিতে হবে। সিমেন্স, জিই বা এবিবি-এর মত প্রতিষ্ঠান বিদ্যুৎ খাতে কাজ করছে, প্রশিক্ষণে তাদের সহযোগিতা নেওয়া যেতে পারে।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, বিদ্যুৎ খাতের ১৪টি প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানির বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য নিয়ে কেপিএমজি একটি প্রতিবেদন প্রস্তুত করে । কর্মশক্তি কৌশল, সক্ষমতা বৃদ্ধি কৌশল, প্রতিভা ব্যবস্থাপনা কৌশল ও সংস্থা উন্নয়ন কৌশল এই চারটি বিষয়ের ওপর গুরুত্ব দিয়ে বিদ্যুৎ খাতের সুষম প্রবৃদ্ধি মডেল সংক্রান্ত প্রতিবেদন কেপিএমজি পাওয়ার সেলে প্রদান করেছে।
ভার্চুয়াল এই সভায় এ সময় অন্যদের মাঝে বিদ্যুৎ সচিব ড. সুলতান আহমেদ, পিডিবির চেয়ারম্যান মো. বেলায়েত হোসেন, আরইবির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মিন উদ্দিন (অব.) ও পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেনসহ কোম্পানিগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালকরা সংযুক্ত ছিলেন।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: