স্ট্রাইকার গোল করলেন, আবার গোলরক্ষক হয়ে গোল বাঁচালেনও

লুকাস ওকাম্পোস, ম্যাচের শুরুতে স্ট্রাইকার (বাঁয়ে), শেষে গোলরক্ষক (হলুদ জার্সি)। ছবি: টুইটারস্ট্রাইকার তো গোল করবেনই, ওটাই তাঁর কাজ। যেমন গোলরক্ষকের কাজ গোল বাঁচানো। কিন্তু এ দুটি কাজই যদি একজনই করেন এবং সেটা একই ম্যাচে? বিস্মিত হচ্ছেন তো! আমন ঘটনাই ঘটেছে কাল রাতে সেভিয়ার র‍্যামন সানচেজ-পিজুয়ান স্টেডিয়ামে। সেভিয়ার আর্জেন্টাইন উইঙ্গার লুকাস ওকাম্পোস প্রথমে স্ট্রাইকার হয়ে গোল করেছেন। আবার ম্যাচের শেষে গোলরক্ষক বনে গিয়ে দুর্দান্ত দুই সেভ করে দলকে এনে দিয়েছেন দারুণ এক জয়।

কীভাবে ঘটল এই ঘটনা? নিজেদের মাঠে এইবারের বিপক্ষে ম্যাচটায় ৫৬ মিনিটে লুকাস ওকাম্পোসের গোলে এগিয়ে যায় সেভিয়া। যোগ হওয়া সময়ের একবারে শেষ মিনিটে এইবারের একটি শট ঠেকাতে গিয়ে প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়ের সঙ্গে ধাক্কা লাগে সেভিয়ার গোলরক্ষক টমাস ভাচলিকের। তাতে ভাচলিক এত গুরুতরভাবে আহত হন যে স্ট্রেচারে করে মাঠের বাইরে নিয়ে যেতে হবে তাঁকে। কিন্তু ম্যাচের যোগ হওয়া সময় তখনো শেষ হয়নি।

ওদিকে সেভিয়ার কোচ হুলেন লোপেতেগি ততক্ষণে পাঁচ বদলি করে ফেলেছেন। তাহলে গোলবারের নিচে দাঁড়াবেন কে? সাধারণত এসব ক্ষেত্রে কোনো এক ডিফেন্ডারকেই দেখা যায় দায়িত্ব নিতে। কিন্তু কাল দেখা গেল উইঙ্গার লুকাস ওকাম্পোস গোলকিপারের জার্সি পরে দাঁড়িয়ে গেলেন গোলবারের নিচে। শুধু দাঁড়ালেনই না, এইবারের কর্নারের পর দারুণ দুটি সেভও করলেন। যার একটি থেকে তো প্রায় গোল হয় হয় অবস্থা!

ম্যাচ শেষে রোমাঞ্চিত ওকাম্পোস বললেন, ‘অবিশ্বাস্য রাত! আমি অনুশীলনে মাঝে মধ্যে মজা করে গোলকিপার হয়ে যাই। কিন্তু কখনো ভাবিনি এমন বড় ম্যাচে গোলবারের নিচে দাঁড়াতে হবে।’
তাঁর এই দারুণ নৈপুণ্যে শেষ পর্যন্ত সেভিয়া ম্যাচটা জিতেছে ১-০ গোলে। তাতে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলার আশাও উজ্জ্বল হয়েছে ওকাম্পোসদের। ৩৪ ম্যাচে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত লা লিগার চার নম্বরে সেভিয়া।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: