করোনার দুর্বলতা না কাটতেই আ.লীগ নেতার মার খেলেন

মোহেল রানারাজশাহীর তানোর উপজেলা টেকনিশিয়ানকে পিটিয়েছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান। আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলার কৃষ্ণপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এই টেকনিশিয়ানের নাম মোহেল রানা (৩০)। তিনি সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের একটি প্রকল্পের অধীনে তানোর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে কর্মরত। মাত্র চার দিন আগে তিনি করোনামুক্ত হয়েছেন। শারীরিক দুর্বলতা এখনো কাটেনি।

ইউপি চেয়ারম্যানের নাম আবদুল মতিন। তিনি তানোরের পাঁচন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি।

অন্যের জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে টেকনিশিয়ান মোহেল রানাকে পেটান আওয়ামী লীগের নেতা মতিন। আহত মোহেল স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।

মোহেল অভিযোগ করেন, সকালে কৃষ্ণপুর বাজারে অন্যের একটি জমির বিষয় নিয়ে চেয়ারম্যান তাঁর সঙ্গে কথা-কাটাকাটি শুরু করেন। একপর্যায়ে চেয়ারম্যান তাঁকে চড়-থাপ্পড় ও কিল-ঘুষি মারতে থাকেন। শত শত লোক এ ঘটনা দেখেছেন। পরে লোকজন এসে তাঁকে রক্ষা করেন। বিষয়টি তিনি ইউএনওকে জানিয়েছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, তিনি অভিযোগ পেয়েছেন। টেকনিশিয়ানকে থানায় লিখিত অভিযোগ করতে বলেছেন। অভিযোগ করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে ইতিমধ্যে ওই চেয়ারম্যান তাঁর কার্যালয়ে এসে ক্ষমা চেয়েছেন।

জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল মতিন দাবি করেন, ‘অভিযোগ সঠিক নয়, সে আমার ভাতিজা হয়। আমাদের মধ্যে একটা ভুল–বোঝাবুঝি হয়েছিল। সেটা ঠিক হয়ে গেছে।’

এ বিষয়ে মোহেল রানা বলেন, তাঁর সঙ্গে কোনো মীমাংসা হয়নি। পরিবারের লোকজনের সঙ্গে আলাপ করে তিনি আইনি ব্যবস্থা নেবেন।

তানোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাকিবুল হাসান বলেন, বিষয়টি তাঁর জানা নেই। লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।





সম্পূর্ণ রিপোর্টটি প্রথম আলোতে পড়ুন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: