’হাড় কাঁপানো শীত’ নিয়ে আবহাওয়ার সর্বশেষ আপডেট

সারা দেশে হাড় কাঁপানো তীব্র শীত ও হিম শীতল বায়ু আর প্রচন্ড ঠান্ডায় জনজীবন বিপর্যস্ত অবস্থায় নেমে এসেছে। আগামীকাল সোমবার (১৮ জানুয়ারি) থেকে এই অবস্থার উন্নতি হলেও শীত থাকবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। দেশের অনেক অঞ্চলের ওপর দিয়েই বর্তমানে বয়ে যাচ্ছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ, সঙ্গে রয়েছে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা।

এমনকি উত্তরাঞ্চলের অনেক এলাকায় সূর্যেরই দেখা মিলছে না। গত মঙ্গলবার থেকে দেশে শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়। এই শৈত্যপ্রবাহের ফলে চরম দুর্ভোগে আছে দেশের নিম্ন আয়ের মানুষ। বিশেষ করে উত্তরাঞ্চলের মানুষ বেশি দুর্ভোগে পড়েছে। ওই এলাকায় ঘন কুয়াশা থাকায় এবং সূর্যের দেখা না মেলায় খেটে খাওয়া মানুষজন কাজকর্মও করতে পারছে না।

আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান গণমাধ্যমকে বলেন, কাল সোমবার থেকে মূলত তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করবে। তবে যেহেতু কুয়াশা আছে, সূর্যের দেখা মিলছে না, এ জন্য শীতের অনুভূতি থাকবে। আর মঙ্গলবার অথবা বুধবার থেকে শৈত্যপ্রবাহ কাটতে শুরু করবে। জানুয়ারি মাসের পুরোটাই শীতকাল।

তাই এই মাসে শৈত্যপ্রবাহ থাকুক আর নাই থাকুক শীত থাকবে। গতকাল দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৩.৬, ময়মনসিংহে ১১.৫, চট্টগ্রামে ১৪, সিলেটে ১২, রাজশাহীতে ১০.৬, রংপুরে ১১, খুলনায় ১২.৬ এবং বরিশালে ১০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

গতকালের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, শ্রীমঙ্গল, পাবনা, বগুড়া, নওগাঁ, দিনাজপুর, চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলসহ রংপুর বিভাগের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।সারা দেশে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি কুয়াশা পড়তে পারে।



আরও পড়ুন বাংলা ইনফোতে

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

%d bloggers like this: